আপনার ভেতরের শিল্পীসত্ত্বা কি আলোড়িত হয় কখনো কখনো?

আমিই আপনার স্বপ্ন জাগানো গল্পকার …!

সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সবচাইতে প্রভাববিস্তারী মাধ্যম হলো চলচ্চিত্র। মাধ্যমটি যে শুধু চিত্তনিনোদনের মাধ্যম, তা কিন্তু নয়। এর সবচেয়ে বড় গুন হলো বক্তার পূর্নাঙ্গ অভিপ্রায় দর্শকের হৃদয় মনকে আচ্ছন্ন করে। এখানে বক্তা একজন অভিনেতা কিংবা অভিনেত্রী। সেই একই অভিপ্রায় হয়তো নিয়ত খেলা করে আপনার কিংবা আমাদের কারো মাঝে। আর গোটা সমাজ এবং এর অন্তর্ভূক্ত আমি, তুমি এবং সে হলো সেই বক্তব্যের ধারক এবং বাহক। তাই চলচ্চিত্রের সফলতা নির্ভর করে একজন অভিনেতা বা অভিনেত্রী সেলুলয়েডে কতোটা সমাজের যাপিত জীবনের প্রতিচ্ছবি বা প্রতিনিধি হয়ে উঠতে পারেন, তার উপড়ে। তাই নির্মাতা যেমন খুঁজে বেড়ান একটি সফল মুখশ্রী, তেমনি একজন শিল্পীও খুঁজতে থাকেন একটি মনের মতো গল্প, যেখানে তিনি হয়ে উঠতে পারেন আমাদের অন্তরে লালিত চরিত্রের সফল প্রতিনিধি।

আবার প্রতিটি মানুষই নিজের অজান্তেই কিন্তু নিজের ভেতরে কম বা বেশী একজন অভিনয় শিল্পী! তা যদি না হতো, তবে আটপৌড়ে জীবনের ছকে বাঁধা বাংলাদেশের পাবনা জেলার বেলকুচিতে জন্ম নেয়া স্কুল শিক্ষক করুণাময় দাশগুপ্তের পঞ্চম সন্তান রমা কখনোই চিরদিনের সুচিত্রা সেন হয়ে উঠতে পারতেন না। তাঁর আগ্রহ ছিলো স্থানীয় নাটক কিংবা জলসায়! কিন্তু মানুষের হৃদয়ে লালিত সৌকর্যের উন্মীলনে তাঁর যশ তাঁকে তার অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে দিয়েছে। আজও তাই তিনি মানুষের হৃদয়ে হৃদয়ে লালিত হন। একমাত্র সুচিত্রা সেনের জন্যেই এটি সত্য তা কিন্তু নয়, তাবৎ বিশ্বের যশস্বী অভিনেতাঅভিনেত্রীদের সবার শুরুর গল্পটি ঠিক এমনই!

আর একটা কথা এখানে উল্লেখ না করলে এই কথা গুলোর রহস্য আসলে থেকে যাবে অস্পষ্ট। সেটা হলো আমাদের বাঙ্গালী সংস্কৃতির ব্যাপ্তী। যাঁরা এর ভেতরে বাস করেন, তাঁদের কথা আলাদা। বাইরে থেকে তাঁদের পাগলপাগল মনে হয়! কিন্তু কাছে গিয়ে দাঁড়ালে, তাঁদের ব্যক্তিত্ত্বের সামনে অজান্তেই নুয়ে আসে সমস্ত হৃদয়। তাঁদের মুহূর্তব্যাপী ঘরের কোণার ছোট্ট একটি প্রতিক্রিয়া হয়তো হতে পারে দিগন্ত বিস্তারী অসামান্য মানবিক আবেদন, যার জন্যে কালের যাত্রার ধ্বনিতে নতুন রঙের সুরারোপ হয়।

আপনি কি তেমন একজন অন্তরে লালিত স্বপ্নের শিল্পী বলে অনুভব করেন নিজেকে? তাহলেই লেখাটির গন্তব্য হয়তো আপনাকে পৌঁছে দেবে একটি শতপথের বিরতিস্থলে! একটু ভেবে নেবার অবকাশ তো থেকেই যায়, অভিজ্ঞতার নেভিগেশনে ভুল দিক নির্দশনার সুযোগ আজকাল বড্ড কম। জীবনের মোড় ঘুরিয়ে সেই অধরা সপ্নের সোপানতলে তবে আপনার জায়গাটিই সুনির্দ্দিষ্ট হয়ে আছে। একবার কৌতুহলী হতে দোষ কি? চারপাশে ঘটে যাওয়া গল্পগুলোর সবাকনির্বাক অভিপ্রকাশের নামই অভিনয়। আর সেটি যখন সেলুলয়েডে কিংবা কোন আধুনিক সংখ্যায়ন মাধ্যমে পুনঃস্ফুটনের প্রকৃয়ায় যায়, তখনই তা হয়ে উঠে চলচ্চিত্র! বুকের ভেতরে লালিত স্বপ্নের সামান্যও যদি অদম্য অহঙ্কারে আত্মপ্রকাশে অস্থির হয়ে উঠে তবে এখনই সময়, যুক্ত হোন কিংবা সম্পর্কিত হয়ে পড়ুন ছোট্ট লেখাটির শেষ দিক নির্দ্দেশী গন্তব্যে। হয়তো গোটা পৃথিবী একদিন আপনার অসামান্য বোধে আপ্লুত হবে, সভ্যতাসংস্কৃতির কপোলতলে যুক্ত হবে আর একটি তীলক!

pexels-photo-2332376

দিক নির্দ্দেশিকা:

  • প্রথম প্রথম হয়তো একটু আড়ষ্টতা, খুবই স্বাভাবিক, ইচ্চে আর মনোবল তো অটুট! ভয় কি সহ অভিনেত্রীর ভূমিকাতেই নেমে যান! পরে আপনাকে পুর্ণাঙ্গরূপে পাবো পর্দায়!
  • বয়েস? কোন বিষয় হলো? আদম্য আকাঙ্খাই সব চেয়ে বড় কথা। তিরিশের আশেপাশে হলে সবচেয়ে ভালো, কেননা তখন থাকে সত্যটুকু আঁজলা পেতে ছেঁকে তুলবার সক্ষমতা। সাথে থাকে হৃদয়বোধের পূর্ণরূপ, থাকে প্রতিটি ক্রিয়াকলাপের পরিমিতি বোধও। আপনিই উত্তম যদি সেরকম কেউ হন।
  • আপনার অবস্থান যদি রাজধানী সিউলে বা তার আশেপাশে হয় তবে তো কথাই নেই, কেননা যে আড়ষ্টতা, সেটাকে ভেঙ্গে তবেই না আপনি প্রকাশিত হবেন স্ফূলিঙ্গ হয়ে! আর আমাদের চিরাচরিত রক্ষনশীল সমাজে বেড়ে উঠার নেতিবাচক দিকটিকে দূরে ঠেলে এগিয়ে আসতে হলে ভাঙতে হবে অনেক গুলো দেয়াল। মানুষ হিসেবে আত্মপরিচয়ের গর্বে উদ্বেলিত না হওয়া পর্যন্ত আপনার পূর্নতা প্রাপ্তির পথ ক্রমশঃ বিলম্বিত হবে।
  • যেমনই হোন না কেনো, আপনার আটপৌড়ে জীবনের একটুকরো ছবি কি পেতে পারি না? তাতে করে আপনাকে সাজিয়ে তুলবার পূর্ব প্রস্তুতিতে আমাদের পরিশ্রম যাবে কমে। আর আপনিও সহসাই উঠবেন অনন্যা হয়ে!
  • যেহেতু গল্পের প্লটটি আসছে কোরিয়ান সমাজের ভেতর থেকে উঠে আসা বিতর্ক কিংবা অসামঞ্জস্যতার রূপকল্প থেকে, তাই অভিনয়ের বাঙ্ময়তার প্রকাশ ঘটবে কোরিয়ান ভাষাতে। সুতরাং ভাষার দক্ষতাও কিন্তু একটা বড় চ্যালেঞ্জ! ভয় নেই তাতে, অভিনয় ভাষার দেয়ালকে ডিঙ্গিয়ে আসতে পারে সহজে! ভাষাঅভিনয় এর মাঝেই আসলে থাকতে হবে ভারসাম্যতা। ব্যাস, আপনি উৎড়ে গেলেই এবার সোজা প্রশিক্ষকের মুখোমুখী হবেন! এতো কষ্ট করে আপনার জন্যে বুঝিয়ে বুঝিয়ে লিখলাম, শিল্পী তো আপনি বটেই, তবে যশ আর খ্যাতির ভীড়ে সেদিন লেখককে ভুলে যাবেন না যেনো ….! আমিই আপনার স্বপ্ন জাগানো গল্পকার …!
pexels-photo-1117132

আমিই আপনার স্বপ্ন জাগানো গল্পকার …!

আগ্রহীরা কয়েক কপি নতুন ছবি এবং সংক্ষিপ্ত জীবন বৃতান্ত সহ আমাদের কাছে ইমেইল করুন। Email: banglaculturekorea@gmail.com এ। 

‘সংস্কৃতি মানুষের অন্তরের চরমভাবাপন্নতা দূর করে হৃদয়ে কোমলতা প্রস্ফুটিত করে’